‘গান আমার বেঁচে থাকার অনুপ্রেরণা’

এই প্রজন্মের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী শফিক মাহমুদ। একের পর এক নতুন গান উপহার দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। ফাস্ট বিডিনিউজ ২৪ থেকে সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বিনোদন রির্পোটার তৌসিফ মাহবুব।

কেমন আছেন?
শফিক মাহমুদঃ আলহামদুলিল্লাহ আমি খুব ভালো আছি।

আপনি গানকে ভালোবাসেন কেন?
শফিক মাহমুদঃ ছোট বেলা থেকেই আমি খুব বেশি গান শুনতাম এবং খুব ভালোবাসতাম। এ জন্য গান ছাড়া আমি থাকতে পারিনা। গান আমাকে বেঁচে থাকার অনুপ্রেরণা যুগায়।

আপনার প্রথম গান সম্পর্কে কিছু বলুন?

শফিক মাহমুদঃ আমার প্রথম গান হচ্ছে, এক মন, আর এই গানটা নিয়েই আমার অনেক আশা ছিলো, গান্টা অনেক ভালো হবে।আর কাজটা যখন শুরু করলাম, ঠিক তখনই সবাই আশাবাদী ছিলাম দর্শন গান্টা খুব ভালো ভাবে নিবে।সো গান আমরা রিলিজ করি মাই সাউন্ড এর ব্যানার থেকে। এবং গানটির গীতিকার ছিলো খন্দকার শহিদুল ইসলাম বকুল সংগীত শিবলু মাহমুদ গানটি সুর করেছি আমি এবং আমার সাথে কন্ঠ দিয়েছিল জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী এবং আমার খব প্রিয় একজন মানুষ সাবরিনা সাবা।সো এই গান্টার খুব ভালো রেসপন্স পেয়েছি দর্শকদের কাছ থেকে।

আপনার কোন ধরনের গান করতে ভালো লাগে?

শফিক মাহমুদঃআমি রোমান্টিক গান খুব পছন্দ করি।আর আমার যতো গুলি গান রিলিজ হয়েছে এর বেশির ভাগই রোমান্টিক গান।আর এখন বর্তমানে সব ধরনের গান নিয়েই কাজ করছি।

আপনি গায়ক হিসেবে পরিচয় দিতে কেমন বোধ করেন?

শফিক মাহমুদঃ আসলে আমি খুব সাধারণ ভাবে চলাফেরা করতে ভালোবাসি।দেখা কখনো কেউ যদি প্রশ্ন করে ভাই আপনি কি করেন, তখন বলতে বাধ্য হই,আমি একজন সংগীতশিল্পী। আর দেখা যাচ্ছে আমাকে যারা ইউটিউবে দেখে গানের মধ্যে, রাস্তা দিয়ে চলার সময় অনেকেই চিনে ফেলে এবং বলে ঐ যে শিল্পী শফিক মাহমুদ যাচ্ছে,তখন আমার খুব ভালো লাগে।এবং আমি ভক্ত দের ভালোবাসা নিয়েই বাঁচতে চাই।

আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?

শফিক মাহমুদঃ আমার খুব ছোটবেলা থেকেই ইচ্ছে ছিলো আমি ভালো একজন গায়ক হবো।এবং বাংলা গান নিয়ে ভালো কিছু করবো।এবং আমার ইচ্ছে বাংলা সংগীত কে সারা বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে চাই।

পরবর্তীতে নিজেকে কোথায় দেখতে চান?

শফিক মাহমুদঃ এখন বর্তমানে গান ছাড়া কিছুই ভাবতে পারছিনা।গান নিয়েই ভালো কিছু করার খুব ইচ্ছে।আমার খুব ইচ্ছে গানের মাঝেই সারা বিশ্বের মানুষ আমাকে চিনুক। আর মানুষের পাশে থাকতে চাই। এবং অসহায় মানুষের জন্য ভালো কিছু করতে চাই আমিন

গানে কাকে আইডল মানেন?

শফিক মাহমুদঃ বুদ্ধি হওয়ার পর থেকেই যাদের গান বেশি শোনেছি,সৈয়দ আব্দুল হাদি স্যার,সুবির নন্দী স্যার,খোরশেদ আলম স্যার,এন্ড্রু কিশোর স্যার।রুনা লাইলা ম্যাম,সাবিনা ইয়াসমিন ম্যাম,ওনাদের গান বেশি শোন্তাম,বাট ২০০২ গিয়েই আমি আসিফ ভসিয়ের পুরাই ভক্ত হয়ে গেলাম।এর আসলো হাবিব ওয়াহিদ ভাই,আরফিন রুমি ভাই,বেলাল খান আর আমার কাছে এরা সবাই আইডল।আমি সব সময় এই গুনি মানুষদের ফলো করি।তাই সবার প্রতি রইলো শ্রদ্ধা ও ভালবাসা অবিরাম।

বর্তমান দেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি কেমন চলছে?

শফিক মাহমুদঃ বর্তমানে মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা খুবই খারাপ।প্রথম কথা হচ্ছে গুনি মানুষ গুলি চলে যাচ্ছে।এবং গানের মান খুব সস্তা হয়ে যাচ্ছে।গুনি মানুষের কদর খুব কম।আর এখন ইউটিউবের বাজারে সবাই শিল্পী হয়ে যাচ্ছে।যার যা ইচ্ছে তাই নিয়ে গান রিলিজ করছে।অডিও গান এখন কেউ শোনতে চাইনা।সবাই ভিডিও নিয়েই ব্যাস্ত। যে যতো ভালো করতে পারে, গান যাইহোক না কেনো।আর এখন কার বাজারে ভালো গানের মূল্য খুব কম হয়ে যাচ্ছে।কারন ইউটিউব এ ভালো গানের ভিউ খুব কম,আর আজেবাজে গানের ভিউ খুব বেশি।আর ইউটিউব কোম্পানি গুলি এখন যে গানের ভিউ বেশি হচ্ছে, ঐ শিল্পীর পিছনে দৌরাচ্ছে, এই হচ্ছে এখন মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা। তবে একটা সময় ভালো গুলিই উঠে আসবে ইনশাআল্লাহ।

সঙ্গীতের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার শুরুট্ জানতে চাই? 

শফিক মাহমৃদঃ সংগীতের প্রতি টান খুব ছোট বেলা থেকেই,সব সময় ভাবতাম কবে শিল্পী হবো,কবে আমার গান সবাই শোনবে, সেই আশায় প্রতিটি সময় অপেক্ষা করেছি।বাট চাইলেই শিল্পী হওয়া যায়না।তার জন্য অনেক পরিশ্রম করতে হয় হয় এবং একটা লিংক লাগে।সো আমি খুব লাকি যে আমার বড় ভাই বেলাল খান একজন জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী, আমাদের পাশাপাশি বাড়ি, আর ভাইয়ের সাথেই যোগাযোগ করে আমার এই সংগীত জগতে পদার্পণ। তাই ভাইয়ের প্রতি রইলো শ্রদ্ধা ও ভালবাসা।সো আমি গানের মানুষ এবং গান ভালবাসি, গানের মাঝেই বেঁচে থাকতে চাই।ধন্যবাদ