বিপজ্জনক লোক || গোলাম রসুল

ফাস্ট বিডিনিউজ ২৪ ●

গোলাম রসুল ● সমাজে বসবাস করা মানুষের মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরণের চিন্তা-ভাবনার লোক। কারো চিন্তা-ভাবনার সাথে কারো মিল নেই। কারো বুদ্ধি বেশি, আবার কারো কম। প্রতিটি মানুষের চিন্তা পরিচালিত হয় স্ব-স্ব পথে। যে ব্যক্তি যা নিয়ে ভাবে, সেই সে বিষয়ে অভিজ্ঞ। এই অভিজ্ঞতার দিকও প্রবাহিত হয় সু-পথ, কু-পথসহ নানান পথে। যাই হোক, মূল বিষয়টি হলো সমাজের বিপজ্জনক লোক। এই ধরণের কিছু লোক সমাজে আছে যারা মানুষের সব কথা শোনার আগেই বুঝে ফেলে। যা বক্তার মূল উদ্দেশ্যকে ভিন্ন পথে প্রবাহিত করে।

এ বিষয়টি সামান্য পরিসরে বোঝানোর চেষ্টা করা হলো, ১ম ব্যক্তি ২য় ব্যক্তিকে বললেন- মাঠে ধান হয়েছে ভাল, কিন্তু সমস্যা। সমস্যা পর্যন্ত বলার সাথেই ২য় ব্যক্তি বললেন-আরে তোর সমস্যা আমি বুঝতে পেরেছি। মাঠে এবার সবার ধান ভাল, কিন্তু তোর জমিতে সার-মাটি ঠিকমত না দেয়ায় ধান খারাপ হয়ে গেছে। আমার ধান অনেক ভাল, দামি দামি সার কীটনাশক দিয়েছি জমিতে। এবার তিনি কি করেছেন প্রথম থেকে সেই বয়ান শুরু করলেন। এদিকে ১ম ব্যক্তির জমিতে পানি জমে আছে তা সরানো যাচ্ছেনা তা আর বলার সুযোগ পেলনা। অথচ ২য় ব্যক্তির কথা নীরবে শুনতে হচ্ছে। ওই সামান্য কথাটুকুও বলার সুযোগ নেই।

যেসব মানুষ অন্যের মুখের কয়েকটি শব্দ শুনে উদ্দেশ্যটা পুরো বুঝে ফেলার কথা বলে, এরাই সমাজের সবচেয়ে বিপজ্জনক লোক। কারণ, এরা ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করে মানুষের সাথে মানুষের বিবাদ সৃষ্টি, মনোমালিন্যসহ খুন-খারাবি পর্যন্ত নিয়ে যেতে সক্ষম।

এসব লোকেরা সবসময় নিজেকে বড় মনে করে। সবার চেয়ে সে বেশি বোঝে, মনে করে নিজেকে অনেক বুদ্ধিমান, তার মত জ্ঞানী লোক এ অঞ্চলে আর কেউ নেই, সবাই তার কাছে মাথা নত করে থাকবে। এরা যখন যেদিকে শক্তি বেশি সেদিকে গড়িয়ে যায়। ঘুরিয়ে ফিরিয়ে কথা বলতে পারে। এখন এক কথা, পরে আরেক কথা, শেষে একেবারেই অস্বীকার করা তাদের স্বভাব। যেদিকে সুবিধা নেই, সেদিকে এক পাও বাড়ায়না। আবার যেখানে স্বার্থ আছে সেখানে ঘন পাক দিতে থাকে। নিজের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য যত ছোট এবং ঘৃণ্য কাজই হোক সবই তাদের দ্বারা সম্ভব।

এসব ব্যক্তিরা অন্যের সমস্যা বোঝেনা, নিজের সমস্যাকে বড় মনে করে। একজনের বদনাম অন্যের কাছে বলে খুবই আনন্দ অনুভব করে। সমাজের সম্মানীয় লোকের দূর্বল ঘটনা এলাকার মানুষের কানে পৌঁছে দেয় বাতাসের বেগে। এরা প্রতিবেশীর সাথে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি করে নিজেকে ধন্য মনে করে। সব সময় থাকে ধরা ছোঁয়ার বাইরে এবং প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায়। কোন অপছন্দনীয় লোক কাছে এলে তাকে দেবতার মত শ্রদ্ধা করে, সে বের হয়ে যাবার সাথেই তাকে গালিগালাজ করে। এসব লোক চিহ্নিত হলেও কেউ প্রতিকার করতে সাহস পায়না। এদেরকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করলেও ওরা ছায়ার মত লেগে থাকে সবার পিছে। সমাজের এই বিপজ্জনক লোকেরা মানুষ এবং সমাজকে ধীরে ধীরে কু-পথে ধাবিত করে। সে কারণে এদের নিকট থেকে দূরে থাকা উচিত।