বিশ্ব আইসক্রিম দিবস পালিত

সোনিয়া ইসলাম ●

আইসক্রিম সারা বিশ্বের একটি খুবই আকর্ষণীয় জনপ্রিয় খাবার। পৃথিবীতে আইসক্রিম পছন্দ করেন না এমন লোকের সংখ্যার খোঁজ মিলবে হয়তো হাতেগোনা কয়েকজন। কারণ বিশ্বের অধিকাংশ মানুষের পছন্দের তালিকার শীর্ষে স্থান দখল করে আছে আইসক্রিম নামক খাবারটি ।

এটি মূলত ডেজার্ট ধর্মী খাবার। আইসক্রিম কে অনেকেই কথ্য ভাষায় ‘ফুলকি’ নামে হয়ত চিনে থাকেন । তবে আইসক্রিমের সাধারণ ও মূল উপকরণ হচ্ছে দুধের সাথে চিনির মিশ্রণ ঘটিয়ে বরফ তৈরি করা। তবে স্বাদের ভিন্নতা কে প্রাধান্য দিয়ে এতে যোগ করা হয়ে থাকে বিভিন্ন ধরনের ফ্লেভার । যেমন বিভিন্ন ধরনের ফলের রস,ভ্যানিলা, চকলেট, স্ট্রবেরি, নারিকেল, চিনা বাদাম, মাখন, ব্লুবেরি, ইয়োগার্ট, ওরিও, বাটার স্কচ, ভুট্টা সিরাপ, বিভিন্ন সুস্বাদু ও সুগন্ধি কারক বস্তু, পানি ইত্যাদি । তবে হিমায়ন প্রক্রিয়ার সময় যে বায়ু একত্রীভূত করা হয় সে বায়ু কিন্তু আইসক্রিমের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। স্বাদের ভিন্নতা আনার ক্ষেত্রে আইসক্রিম কে বৈচিত্র ও নতুনত্ব এনে দিয়েছে এসব বিভিন্ন ফ্লেভার। তার সাথে আইসক্রিমের জগতকে দেখিয়েছে সাফল্যের মুখ। কারণ মানুষের পছন্দের ও স্বাদের ভিন্নতা রয়েছে । আর আইসক্রিম বাণিজ্যের ক্ষেত্রে এ ভিন্নতার বাধাকে অতিক্রম করতে সাহায্য করেছে তাদের বিভিন্ন ফ্লেভারের সংমিশ্রন। যা কিনা যেকোন রুচির মানুষই নির্দ্বিধায় গ্রহণ করতে পারে।

আইসক্রিম এর জন্মস্থান বা আবিষ্কার চীন থেকেই শুরু হয়েছিল । পরবর্তীতে ইতালীয় পর্যটক মার্কোপোলো আইসক্রিম তৈরির কৌশলটি চীন থেকে ইউরোপে নিয়ে আসেন। তৎকালীন সময়ে আইসক্রিম ‘কুবলাই’ নামে পরিচিত ছিল । এবং পরবর্তীতে তার নামকরণ করা হয় ‘আইসক্রিম’। ১৫৩৩ সালের দিকে ইতালি থেকে প্রথমে ফ্রান্স, ফ্রান্স থেকে ইংল্যান্ড হয়ে আমেরিকাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আইসক্রিম ছড়িয়ে পড়ে। এবং হাজার ১৯৯০ সাল হতে আইসক্রিমের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করা হয়। এবং তা পরবর্তীতে১৯৮৪ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগান (৪০তম) জুলাই মাসের তৃতীয় রবিবার জাতীয় আইস্ক্রিম মাস ও ও দিবস প্রবর্তন করেন। সেই থেকে জুলাই মাসের তৃতীয় রোববার বিশ্ব জুড়ে পালিত হয়ে আসছে জাতীয় আইসক্রিম দিবস। সে হিসেবে এবারের আইসক্রিম ডে আজ রবিবার (২১জুলাই) ।

“আজ বিশ্ব আইসক্রিম দিবস” অত্যন্ত আনন্দঘন মুহূর্তের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করেছে বাংলাদেশ সর্বাধিক জনপ্রিয় আইসক্রিম ব্যান্ডের কোম্পানি ‘ইগলু আইসক্রিম’ যা আব্দুল মোমেন লিমিটেড এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত।