• আজ রবিবার, ২২শে জুলাই, ২০১৮ ইং ; ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ ; ৮ই জ্বিলকদ, ১৪৩৯ হিজরী
  • ফয়সাল হাবিব সানি’র একগুচ্ছ কবিতা

    ফয়সাল হাবিব সানি’র একগুচ্ছ কবিতা

    ১. পাথর-১

    অামি জানি, তোমার ভেতরও এক পাথর রয়েছে;
    তুমি ইচ্ছে করলেই সে পাথর ভাঙতে পারো না-
    পাথর ভাঙতে ব্যর্থ তুমি
    তাই নতুন পাথরও গড়তে পারো না।

    . পাথর চুল্লী

    আমার ভেতরে মহার্ঘ্য অলৌকিক এক পাথর রয়েছে; প্রত্যহ ঘষে ঘষে যত্ন করে সে পাথরে
    আমি আগুন জ্বালাই।
    অাগুনে পুড়ে প্রতিনিয়ত ছারখার হয়ে যাই অামি! ক্ষণিকের জন্য অামার মৃত্যু হয় নিয়মিত।
    পরক্ষণেই অাগুন হয়ে জন্ম নিই অাবার এ পৃথিবীতে— অাশ্চর্য্যের বিষয়, যখনই অামার মৃত্যু ঠিক পরমুহূর্তেই অামার জন্ম।

    শুধু অামি নয়, তোমাদের ভেতরেও এ পাথর বিদ্যমান। অামি অাগুনকে বড়ো ভালোবাসি তাই অাগুনে পুড়ি। চাইলে তোমরাও পারো এ অাগুনে পুড়তে যত্ন করে পাথর ঘষে ঘষে।
    দেখবে কিছু মুহূর্তের জন্য হলেও তোমরা এক অব্যক্ত প্রশান্তির সর্গিক সুখে ফেলবে দীর্ঘশ্বাস…

    ৩. জীবনের রঙ

    শখের বশে, রঙধনুর কাছ থেকে কিছু রঙ ধার নিয়েছিলাম জীবনকে রাঙাবো বলে।
    কথা দিয়েছিলাম, জীবনকে রাঙানোর পর জীবন দিয়ে হলেও রঙধনুর রঙ শোধ করে দেবো।
    কিন্তু রঙধনুর রঙে জীবনকে রাঙানোর অাগেই নীলাভ কষ্ট এসে তার চিরচেনা অতিপ্রাকৃত রঙ দিয়ে জীবনটাকে রাঙিয়ে দিয়ে গেলো কতো সুচারুভাবে!
    বাহ্! কি চমকপ্রদ!! মোহনীয় জীবন অামার!
    কি সুন্দর! অতীব সুন্দর সে জীবনের রঙ!!

    অামি জানতাম, কষ্টের রঙের কাছে অামার ধার করা রঙসসমূহ অতি সামান্য, মলিন, অপ্রগাঢ়!
    কি গাঢ় সেই কষ্টের রঙ! কি সৌন্দর্য্যিক কষ্টের রঙে সুশোভিত জীবন অামার!!
    বাহ্! কি দারুণ!! বর্ণিল রঙে রঙিন নিখুঁত জীবন!

    তবে জানিনা, কি কারণে জীবন অামার কাছে এখন ন্যূনতম এক দাম
    অার অামি তো জন্ম থেকেই মৃত্যুপূর্ব বিষণ্ন এক নাম!

    ৪. বিষাদকাব্য-১

    মাঝে মাঝে কেনো জানি ভাবি, খুব বেশি ভাবি
    বিষাদ! সে কি অামার জন্মগত নাম, নাকি বুকের উপর চাপা কোনো নীলাভ পাথর;
    যে পাথরের বুকের অতলেও পুঞ্জিভূত কি এক ব্যথা! অজস্র রাত্রির কালো কষ্ট
    অাহা, নষ্ট! এ জীবন বড়ো নষ্ট!!

    ৫. খুঁজে নেবো আমাকে

    অামি অাড়ালেই থেকে যাব তোমাদের ল্যামপোষ্টের নন্দিত শহরে;
    নিয়নের অালোর নিচে হয়তো নিয়ত দলিত-মথিত হবে ঘুমন্ত নগরীতে অামার পায়ের ছাপ!
    তবে সেখানেও পাবে না অামায়, অামায় কোথাও পাবে না তোমরা।

    অামাকে পাবে কেবলই অামার ভেতর; অামার ভেতর `অামি’কেই চাষাবাদ করে ঠিক খুঁজে নেবো অামাকে।

    Close