• আজ রবিবার, ১৯শে আগস্ট, ২০১৮ ইং ; ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ ; ৭ই জ্বিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী
  • শ্রমিকদের চাকুরী নিয়মিত করাসহ ৪ দফা দাবিতে বিএডিসি শ্রমিকদের বিক্ষোভ সমাবেশ

    ফাস্ট বিডিনিউজ ২৪ ● প্রেস বিজ্ঞপ্তি ●

    আজ শনিবার ১২ মে ২০১৮, সকাল ১০.৩০ থেকে ১২.০০ টা পর্যন্ত ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নীতিমালা অনুযায়ী বিএডিসির শ্রমিকদের চাকরি নিয়মিত করা, মাষ্টাররোলের নামে শ্রমিক হাজিরা বন্ধ করা, শ্রমিকদের মজুরী ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করা এবং বিএডিসিকে শক্তিশালী করার দাবিতে মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচী পালন করেছে বিএডিসি শ্রমিকরা। বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম শ্রমিক ফেডারেশন ও জাতীয় কিষাণি শ্রমিক সমিতি কর্তৃক আয়োজিত এই বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহন করেন সারাদেশ থেকে আগত বিএডিসি সহ কৃষি ফার্ম শ্রমিকরা। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বিএডিসি শ্রমিকদের সকল ন্যায্য দাবি দ্রুত বাস্তবায়ন করার দাবি জানান।

    বক্তারা বলেন, খাদ্যে সয়ংসম্পূর্নতা সহ কৃষি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের যে সফলতা এসেছে তার পেছনে খামার শ্রমিকদের অবদান রয়েছে। বিভিন্ন খামারে কর্মরত দক্ষ শ্রমিকরাই মানসম্মত বীজউৎপাদন করে আসছে। কিন্তু বিএডিসিতে কর্মরত শ্রমিকরা চরম অত্যাচার ও অন্যায়ের শিকার। পক্ষান্তরে বিভিন্ন খামারে দূর্নীতিগ্রস্থ কর্মকর্তারা অবৈধ ভাবে বিপুল অর্থ উপার্জন করছে শ্রমিকদের ঠকিয়ে। কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে হয়রানি করা অথবা ছাটাই করা হচ্ছে।

    বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ তার বক্ত্যবে বলেন, ষড়যন্ত্র করে বিএডিসির সমস্ত শ্রমিককে অনিয়মিত করে রাখা হয়েছে। মাষ্টাররোলে হাজিরার নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাত করা হচ্ছে। সর্বশেষ গত ৮ জুন ২০১৭ ইং তারিখে ‘কৃষি ফার্ম শ্রমিক নিয়োগ ও নিয়ন্ত্রন নীতিমালা ১৯৯০’ সংশোধিত করে নতুন নীতিমালা ‘কৃষি ফার্ম শ্রমিক নিয়োগ ও নিয়ন্ত্রন নীতিমালা ২০১৭’ এর প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। নতুন সংশোধিত নীতিমালায় উল্লেখ আছে নিয়মিত পদে কাজ করার জন্য অস্থায়ী কৃষি ফার্ম শ্রমিক নিয়োগ দেওয়া যাবে না এবং তিন বছর কাজ করলে অনিয়মিত ফার্ম শ্রমিকদের চাকরি নিয়মিত করতে হবে। কিন্তু বিএডিসি কর্তৃপক্ষ নীতিমালাকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে শ্রমিকদের চাকরি নিয়মিত করছে না। বরং বিএডিসিতে চলছে অমানবিক শ্রমিক নির্যাতন। নীতিমালা অনুযায়ী কোন শ্রমিককে নিয়মিত না করায় গরীব ভূমিহীন বিত্তহীন কৃষি ফার্ম শ্রমিকগণ সরকার প্রদত্ত সকল সুযোগ সুবিধা হতে বঞ্চিত হয়ে মানবতর জীবন যাপনে বাধ্য হচ্ছে। সকল নিয়মকে উপেক্ষা করে অবৈধ ও অমানবিক ভাবে বিএডিসি কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের চাকরী নিয়মিত করছে না। বিএডিসি আজ দুর্নীতির আখরায় পরিনত হয়েছে। দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তারা শ্রমিকদের স্থায়ী চাকরির অধিকার থেকে বঞ্চিত করে শ্রমিকদের টাকা লুটপাট করে খাচ্ছে এবং বিএডিসির বীজ উৎপাদন সক্ষমতাকে দূর্বল করে দিয়ে বিএডিসিকে ধ্বংশের ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। শ্রমিকরা তাদের চাকরি স্থায়ী করার দাবি করলে অথবা কর্তৃপক্ষের দুর্নীতি বন্ধের কথা বললে তাদেরকে হয়রানি বা অবৈধ ভাবে ছাটাই দিয়ে দিচ্ছে।

    বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লেহাজ উদ্দিন লাহুল, মামুন হেসেন, আবুল হোসাইন, আমিরুল হক আমিন, গোলাম ছরোয়ার, নূর জাহান বেগম আব্দুস ছালাম ও বিভিন্ন ফার্ম থেকে আগত বিএডিসির শ্রমিক নের্র্তৃবৃন্দ।

    সমাবেশ থেকে আগামী ১ মাসের মধ্যে নিম্নোক্ত দাবি পূরনের জন্য সরকারকে অনুরোধ জানানো হয়। অন্যথায় সকল কৃষি ফার্মে লাগাতার ধর্মঘটের ঘোষণা দেওয়া হয়।

    ১. অবিলম্বে নীতিমালা অনুযায়ী বিএডিসির সকল খামার সমূহের অনিয়মিত শ্রমিকদের চাকুরী নিয়মিত করতে হবে।
    ২. বিএডিসির দুর্নীতি বন্ধে মাষ্টাররোলের নামে শ্রমিক হাজিরা বন্ধ করতে হবে।
    ৩. শ্রমিকদের মজুরী ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে।
    ৪. বীজ উৎপাদন সক্ষমতা বাড়িয়ে বিএডিসিকে শক্তিশালী করতে হবে।

     

    ফাস্ট বিডিনিউজ২৪/ কে এস

    Close