• আজ রবিবার, ১৯শে আগস্ট, ২০১৮ ইং ; ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ ; ৭ই জ্বিলহজ্জ, ১৪৩৯ হিজরী
  • মাহমুদউল্লাহ’র হাত ধরেই শেষ চারে খুলনা

    ফাস্ট বিডিনিউজ ২৪  ●

    mahmudullah-khulna

    তানভীর হায়দারের বলে মেহেদী মারুফের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ যখন সাজঘরে ফিরলেন, জয়ের জন্য তখন খুলনা টাইটান্সের দরকার ১৭ বলে ৮ রান। জয়টা তো হাতের নাগালেই। তবে মাঠ ছাড়ার সময় মাহমুদউল্লাহ মাথা নিচু করেই যাচ্ছিলেন। জয়ের কাজটা শেষ করে আসতে পারলে বোধ হয় এমনটা করতেন না তিনি।

    তবে ম্যাচ শেষে আর মাথা নিচু করে থাকতে হয়নি মাহমুদউল্লাহর। জয়ের বাকি কাজটা সেরেছেন বেনি হাওয়েল। নিকোলাস পুরানকে নিয়ে ৬ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন তিনি। ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে এই জয়ে শেষ চারের খেলা নিশ্চিত হয়েছে খুলনার।

    একই সঙ্গে খুলনা বিদায় করে দিয়েছে আশার দোলাচলে দুলতে থাকা রংপুর রাইডার্সকেও। এই জয়ে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করলো খুলনা। চিটাগাং, রাজশাহী এবং রংপুরের পয়েন্ট সমান হলেও রানরেটের ব্যবধানে রংপুর হয়ে গেলো পঞ্চম দল। সুতরাং, শেষ চারে ঢাকার সঙ্গে ঠাঁই নিলো খুলনা টাইটান্স, চিটাগাং ভাইকিংস এবং রাজশাহী কিংস। রংপুরের বিদায়।

    মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান তোলে সাকিবের ঢাকা। জবাবে ১৮ ওভার খেলেই (১২ বল হাতে রেখে) মাত্র ৪ উইকেট খুইয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে মাহমুদউল্লাহর খুলনা।

    ১৫৯ রানের লক্ষ্য। খুলনার জন্য কঠিন ছিল! এই আসরে যেভাবে ব্যাট করে আসছে মাহমুদউল্লাহ বাহিনী, তাতে এমনটাই হয়তো মনে হয়েছিল অনেকের। কিন্তু এই ধারণা ভুল প্রমাণিত হয়েছে আসরের শুরু থেকেই জ্বলতে থাকা মাহমুদউল্লাহর দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে। আরো একবার দলের কঠিন মুহূর্তে হাল ধরলেন তিনি। বনে গেলেন জয়ের নায়ক।

    ঢাকার বিপক্ষে এদিন ২৮ বলে ৫টি চার ও দুটি ছক্কায় ৫০ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ। স্ট্রাইক রেট ১৭৮.৫৭! দুর্দান্ত এই ইনিংসের সুবাদে ম্যাচসেরাও নির্বাচিত হন খুলনা অধিনায়ক। খুলনার হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪০ রান আসে ওপেনার হাসানুজ্জামানের ব্যাট থেকে। মাত্র ১৯ বল মোকাবেলা করে ৩টি করে চার ছক্কায় এ রান তুলেছেন তিনি। হাসানুজ্জামান শিকার রবি বোপারার।

    এ ছাড়া আব্দুল মজিদের ২১, বেনি হাওয়েলের হার না মানা ২৬, আন্দ্রে ফ্লেচারের ৯ রানে ভর করে অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছায় খুলনা টাইটান্স। ঢাকার পক্ষে ৩ ওভারে ১৭ রান দিয়ে ২ উইকেট শিকার করেছেন রবি বোপারা। একটি করে উইকেট পকেটে পুরেছেন সাকিব আল হাসান ও তানভীর হায়দার।

    এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামা ঢাকাকে শুভ সূচনা এনে দেন মেহেদী মারুফ ও কুমার সাঙ্গাকারা। দলীয় ৫৮ রানের মাথায় প্রথম উইকেট পতন ঘটে তাদের। ১৬ বলে একটি করে চার ও ছক্কায় ১৬ রান করে রানআউটে কাটা পড়েন মেহেদী মারুফ। তবে কুমার সাঙ্গাকারা এদিন ব্যাট হাতে তুলে নিয়েছেন ফিফটি। বেনি হাওয়েলের শিকার হওয়ার আগে ৪১ বলে আটটি চারে ৫৯ রান করেছেন সাঙ্গা। ১৯ রান করা নাসির হোসেন সাজঘরে ফেরেন রানআউট হয়ে।

    ঢাকার অধিনায়ক সাকিবের ব্যাট থেকে আসে ৭ বলে ১১ রান। মোসাদ্দেক হোসেন প্যাভিলিয়নের পথ ধরেছেন ব্যক্তিগত ২০ রানের মাথায়। সেকুকে প্রসন্ন করেছেন ১১ রান। ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ৩ উইকেট লাভ করেছেন জুনায়েদ খান। একটি করে উইকেট লাভ করেছেন শফিউল ইসলাম ও বেনি হাওয়েল।

    ফাস্ট বিডিনিউজ ২৪/এ আই

    Close