বন্দিদশায় যৌন নির্যাতনের শিকার নারী

Joshua Boyle Caitlin Coleman 2
ছবি-সংগৃহীত

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক ● কানাডিয়ান আদালতে স্বামীর বিরুদ্ধে লোহমোর্ষক যৌন নিপীরণের অভিযোগ এনেছেন ৩৩ বছর বয়সী কাইতলান কোলম্যান। কাইতলান কোলম্যানের অভিযুক্ত স্বামী জসুয়া বোয়েল এক সময়ের সাংবাদিক। ২০১১ সালে গর্ভবতী অবস্থায় আফগানিস্তানে সন্ত্রাসী হাক্কানি নেটওয়ার্কের হাতে স্বামীর সঙ্গে অপহরণের শিকার হন তিনি। হাক্কানি নেটওয়ার্ক তালেবান সমর্থিত গ্রুপ বলে পরিচিত। পাচ বছরের বন্দিদশার পর তিন সন্তানসহ এই দম্পত্তিকে উদ্ধার করে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। বন্দিদশা থেকে বের হয়েই স্বামীর বিকৃত যৌন লালসা নিয়ে মুখ খুলে আলোচনায় এসেছেন এই নারী।

স্বামী বোয়েল-এর বিকৃত যৌন লালসা সম্পর্কে কোলম্যান আদালতে বলেন, বোয়েল মিলিত হতে চাইলে মিলিত না হলে মারধরের শিকার হতেন। বন্দিদশার একদিনের ঘটনা বর্ণনা করেন কোলম্যান। তিনি বলেন,  ‘সেদিন বোয়েল আমাকে বিছানায় যেতে বলে ব্যাগে থাকা দড়ি নিয়ে আসে, আর তারপরে হাত-পা বাধা শুরু করে। আমার অনিচ্ছায় যৌনকর্ম চালানোর পর দড়ি না খুলেই রেখে দেয়। আমি ভয় পেয়ে যাই। পালানোর চেষ্টা করেও আমি সফল হইনি।’

আফগানিস্তানের বন্দিশালায় স্বামী বোয়েলের সাথে কোলম্যান। য়েখানে বিকৃত যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছেন তিনি। ছবি-সংগৃহীত

বন্দিদশা থেকে মুক্তি পাওয়ার পরও এই নির্যাতন চলতে থাকে বলে অভিযোগ করেন এ নারী। তিনি বলেন, বোয়েল আমার শারীরিক গঠন ঠিক রাখতে এবং নিয়মিত তার যৌন চাহিদা মেটাতে লাইফস্টাইল ঠিক করে দেয়। এই নিয়ম না মানলে আমার উপরে নেমে আসে নির্যাতনের খড়গ।

মাত্র ১৬ বছর বয়সেই একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সূত্র ধরে জসুয়া বোয়েলজসুয়া বোয়েলের প্রেমে পড়েন কাইতলান কোলম্যান। জীবনে প্রথম যৌন সম্পর্কও অভিযুক্ত স্বামীর সাথে করেন বলে আদালতে জানান তিনি। এই অভিযোগে নড়েচড়ে বসেছে নারীর অধিকার নিয়ে কাজ করা বিশ্ব সংগঠনগুলো।